ঘুমিয়ে পড়েছে দিনের আলো, রাত্রির আঁধার উঠেছে জেগে
সমুদ্রতটে ভেসে ওঠে আইলান
‘উপরে সব বলে দেবো’ ছোট্ট মুখে অকপট হুমকি
শিশুর হাতে হাতকড়া
অন্ধকার প্রকোষ্ঠে দিন কাটে অসহায়
তাক করা বন্দুকের সরু নল, যত্রতত্র বুলেটের আওয়াজ
বিপন্ন শরণার্থীর মহামিছিল
একি মাতম ! দিকে দিকে মজলুম মানবতার ।


কপোলে ঝরা জলে খোদার আরশ কাঁপে
অসহায়ের রোদনভরা আর্তি, মুখে সকরুণ ফরিয়াদ
হে প্রভু ! বাসযোগ্য পৃথিবী দাও
কোথায় তোমার আগুনের প্রখরতা
যুদ্ধোন্মাদ জালিমের কুরসি জ্বালিয়ে পুড়িয়ে ছাই করো
পৃথিবীর তলদেশের ক্রুদ্ধ লাভা উগরে দাও
বিনাশ করো নিপীড়ক প্রতিপত্তির অস্তিত্ব
বিক্ষুব্ধ বাতাসের তীব্রতায় বিচূর্ণ করো ক্ষমতার দম্ভ
মহাসম‍ুদ্রের পাগলা ঢেউয়ে ভাসিয়ে দাও
কূটকৌশলী কর্তৃত্ববাদীর তখতে তাউস ।


হে খোদা ! প্রতিবাদের মহাঝড় তোল মজলুমের
দিক দিগন্তে মহাভাঙনের হোক শুরু
নব সৃষ্টির প্রসব বেদনায় দূর হোক বিভীষিকা
ভরে দাও এ ধরিত্রী কন্নতরু আকাশের উদারতায় ।


ফিারোজ, সিদ্ধেশ্বরী, ১৮/০৯/২০১৫