অরক্ষিত পদতল
স্রোতের প্রতিকূলে চলতে গিয়ে,
প্রায় সমাধি সলিলে
ঢেউয়ের তালে নাচতে না পেরে ।


পুতুল নাচের খেলায় মত্ত সবে
ফকির নাচে, বাদশা নাচে
রাজা নাচে, প্রজা নাচে
পন্ডিত, বিদ্যাধর তারাও নাচে
হেথা হোথা সবাই নাচে
প্রমত্ত নাচুনি যত্রতত্র ।


অসংগতির জল দুকূল ছাপিয়ে
প্লাবনে ভাসায় দিগ্বিদিক
বাঁধন ছিড়ে নৌকাগুলো
বেহিসেবি চলে এদিক সেদিক ।


সে স্রোত সে ঢেউয়ে
সে নাচ সে প্লাবনে
তাল না মিলাতে, একাকী বেতালে
গেয়ে যাই এক বিচ্ছিন্ন সুর ।


ফিরোজ, দিলকুশা, ০২/০২/২০১৬