সবুজ গাছের ছায়ায় ঘেরা ছোট্ট আমার গ্রাম,
গ্রাম সীমানায় বইছে তটিনী, অজয়নদী নাম।
তরুর শাখে পাখিরা ডাকে, সকালে সূর্য ওঠে,
ফুলবাগানে ফুলকলিরা ফুটিলে সৌরভ ছোটে।


আমার গাঁয়ে রাখাল ছেলে বাজায় বাঁশের বাঁশি,
পথের দুধারে সোনা ধানের উপচে পড়ে হাসি।
পড়ন্ত বিকেলে সোনার আলো বিশ্বভুবন জুড়ে,
মিলায় আলো লুকায় সূর্য দূরে ঐ পাহাড় চুড়ে।


পাখিরা আপন বাসায় ফেরে, দিবসের অবসানে,
বেজে ওঠে  সাঁঝের সানাই গাঁয়ে আঁধার নামে।
পথের ধারে জোনাকিরা জ্বলে তালপুকুরের পাড়ে,
বাদুড়েরা নাচে বাড়ির ছাঁচে, বাঁশ বাগানের আড়ে।


চাঁদ ও তারা সুনীল আকাশে সারারাত জেগে রয়,
গাছে গাছে দেখি পাখিরা ডাকে নতুন সকাল হয়।