আজ সকালে ঘুম থেকে উঠে কফির কাপে চুমুক দিতে দিতে কবিতার পাতায় লগইন করতে ভেসে উঠলো আপনার মন্তব্যের উত্তর একটি! বেশ ভালো মন নিয়ে খুললাম!খুলেই দেখলাম "সুমনা হাজরা নামে কোন কবি আসরে ছিলেন না। একজন দুষ্টু 'এম ওয়াসিক আলি' কবিতার আসরে এসে এ অপকর্মগুলো করেছে!"  সুমনা হাজরা ওরফে এম ওয়াসিক আলির খবরে শুধু স্তম্ভিত হলাম না, ভাবতে পর্যন্ত্য লজ্জা লাগছে যে এই আসরের আমি একজন সদস্য।এরকম ঘটনা এই প্রথম নয় আগেও ঘটেছে।আমি লজ্জিত আসরের সদস্যের কাছে নয়,আমি লজ্জিত এই কারণে যে পৃথিবীর সমস্ত পাঠক, যারা এই আসরের সদস্য নন অথচ এই আসরের কবিতা বা আলোচনা পাঠ করেন তাদের কাছে।তাদের মনের প্রতিক্রিয়াটা একবার ভেবে দেখুন, এই আসর সম্বন্ধে তাদের কি ধারণা হতে পারে? আবার আসরের পরিবারের সদস্যরা যারা লেখালেখি করেন না কিন্তু নিয়মিত বা অনিয়মিত ভাবে পড়েন বিশেষ করে পরিবারের সদস্যের লেখাগুলি তারা কিভাবে এ ঘটনা মনের ভেতর নেবেন ? এই অপ্রার্থিত ব্যক্তির এই ঘৃণিত কার্যকলাপ কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায়না!কবি কবীর হুমায়ূন এর পোস্ট 'সুমনা হাজরা-এর স্মরণ তর্পণ' এ  তার ও কবি কবীর হুমায়ূন এর মন্তব্য ও প্রতিউত্তর দেখুন :-
এম ওয়াসিক আলি ০১/০৭/২০১৭, ০৭:৫৩ মি:
কবিতার আসরে আসার পর আসরের কবিগণের প্রতি আলাদা ভালবাসা ও সম্পরক তৈরি হয়ে গেছে।
খুব খারাপ লাগছে।


উত্তর দিন
কবীর হুমায়ূন ১৫/০৭/২০১৭, ১৬:২২ মি:
তুমি যদি সকল কবিদের কাছে ক্ষমা চেয়ে এবং ভুল স্বীকার করে আলোচনা সভায় পোস্ট দাও; তবে আমরা এডমিনকে অনুরোধ করবো তোমার 'ব্যান' উড্রো করার জন্য।


তার মানে এই চোর ও অত্যন্ত নিম্ন মনোভাবের ব্যক্তি শুধু এতো রকমের দুস্কর্ম করেই ক্ষান্ত হননি, আবার মন্তব্য দিয়েছেন!এর পরেও কবি কবীর হুমায়ূন তাকে প্রস্তাব দিয়েছেন 'তুমি যদি সকল কবিদের কাছে ক্ষমা চেয়ে এবং ভুল স্বীকার করে আলোচনা সভায় পোস্ট দাও; তবে আমরা এডমিনকে অনুরোধ করবো তোমার 'ব্যান' উড্রো করার জন্য।' একটা জিনিস অস্বীকার করতে দ্বিধা নেই এতে হুমায়ুন ভাই অত্যন্ত মহান মনের পরিচয় দিলেন ! এতে ভালো না খারাপ হবে সে বিচার শক্তি আমার নেই !
আমার তো মনে হয় এরকম অনেকেই এই আসরে লুকিয়ে আছেন যারা এ ধরণের কার্যকলাপের সঙ্গে জড়িত ।


তাহলে উপায় কি ?
ভেবে দেখার সময় এসেছে।আজকাল প্রত্যেক চাকুরীতে পশ্চাদপট চেক করার রীতি চালু হয়েছে।এই ঘটনা (যা কখনোই হালকাভাবে নেয়া ঠিক নয়) এডমিনের কোনো প্রথা চালু করা উচিত যে যার যখন খুশি আসরে সদস্য হয়ে এই সমস্ত নোংরা কার্যকলাপ চালিয়ে না যেতে পারেন।জানিনা কতোখানি এটা সম্ভব তবু এই আসরের পবিত্রতা রক্ষা করার জন্যে কিছু একটা ব্যবস্থা চালু করার অত্যন্ত জরুরি প্রয়োজন হয়ে দাঁড়িয়েছে ।
আপনারা কি বলেন বন্ধুগণ ?
প্রত্যেকের প্রতি রইলো আমার অগাধ ভালোবাসা ও শুভেচ্ছা।