বিদায়ের পথে দাঁড়িয়ে হেমন্ত
এসেছে হিমেল বাও,
কম্বল, লেপ জড়াও এবার
তাল পাখা ভুলে যা্ও।
প্রত্যুষে তার ঘন কুয়াশায়
চারিদিক শুধু ঢাকা।
কন কনে শীতে কেঁপে ঠক ঠক
চাদর জড়িয়ে থাকা।
গাঁয়ের বুড়োরা নারার আগুনে
তাপলয় নিজ গায়ে,
শিশুর মাথায় রঙ্গিন টুপি
মোজা সবার পায়ে।
হাত পা ফেটে চৌচির সব,
ঠোঁট ফেটে চর চরে,
গলা কাঁটিয়া খেজুর বৃক্ষে
হারি পেতে রস ভরে।
খেজুর রসের মজার পায়েস,
মামীর হাতে রাঁঁধা।
পেট পুরে খাই স্বাদের খা্ওয়া,
নেইতো কোন বাঁধা।
হলুদ সবুজ সরষে ক্ষেতে,
শিশির জুড়ায় প্রান।
গোলাপ, গাঁদা, ডালিয়া ফুলে
ছড়িয়ে দিল ঘ্রান।
মজাদার আর নতুন সবজি,
হাটে মাঠে ক্ষেত জুড়ে
দেখে দুটি নয়ন জুড়ায়
খেয়ে পরান ভরে।
শীত সকালে চুষি চিতই
গড়ম ভাপা পিঠা।
পুকুর জলে ভিষন তেতো
রৌদ্র দারুন মিঠা।