এখন সময় রাত ঠিক বারোটা বেজে দশ
পৃথিবী তন্দ্রাচ্ছন্ন চোখে প্রহর গুনছে দিনের
নিশুতি এই বদ্ধভূমিতে জেগে আছি আমরা পাঁচ
মাত্র পাঁচ মিনিট পর ঘুমিয়ে পড়বো আমিও
ঘুমিয়ে পড়বো চিরদিনের মত
বাকিরা ফিরে যাবে যে যার বাসায়
ঘুমন্ত সন্তানের কপালে চুম্বন করবে
আর আমি একবুক হতাশা নিয়ে মরে যাব,
এখানে আমিই নায়ক অথবা খলনায়ক
আমাকে ঘিরে রয়েছে ডাক্তার, পুলিশ
সময় নির্দেশক আর নির্মম ঘাতক,
এরা আমার শেষ ইচ্ছা পুরণ করেছে -
আমার দেহের চার বোতল তাজা রক্ত
পাঠিয়ে দিয়েছে আহত সৈনিকদের জন্য,
খুব স্বাভাবিক কারণেই মনে প্রশ্ন জাগবে -
আমি কে? কি আমার পরিচয়?
আমি রাজার নিকট রাজদ্রোহী
তোমাদের কাছে গুপ্তচর নয়তো টেরোরিষ্ট
কেউ কেউ ভুল বশত বিপ্লবী বলেন
আবার কেউ কেউ বলেন পাগলা কবি,
কি আমার অপরাধ আমি জানিনা -
তবুও ওরা আমাকে মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত করেছে,
দেশরক্ষায় কবির ছদ্মবেশে গুপ্তচর আমি
দশবছর অতিক্রান্ত হওয়ার পর
আজও আমার একচোখে অন্ধকার
আর অপর চোখে আগামীর স্বপ্ন
বার বার স্বদেশকে রক্ষা করেছি
অভিনয় করতে করতে কখন জানি ভালবেসেছি
ভালবাসার মর্যাদা দিতে বিদেশীনির হাত ধরেছি,
তবে কি এই আমার অপরাধ!
আমিতো দেশের স্বার্থ অক্ষুন্ন রেখেছি
তবে দেশ কেন আমার ভালবাসাকে মানবে না!
ওরা আমার কোন কথাই শুনলো না
আমাকে ঘুম পাড়ানোর জন্য পাঁচ গুলি বরাদ্ধ ছিল
প্রথমটি বাঁ কানের পাশ দিয়ে বেরিয়ে যায়
আরোও কয়েক সেকেণ্ড  জীবনের স্বাদ
পরের গুলি ডান হাতের কবজি দেয় উড়িয়ে
তৃতীয় গুলি ডান পায়ের পাতা ভেদ করলে
আমি দুমড়ে মুচড়ে ভূমিতে লুটিয়ে পড়ি
আমার চারপাশে তখনও সবাই স্থির
চতুর্থ গুলি বুকের পাঁজর দেয় গুঁড়িয়ে
আর শেষ গুলিটি মাথার খুলি দেয় উল্টে
শেষ নিঃশ্বাস ফেলার আগে রক্তাক্ত ঠোঁট দু'টি
শেষবারের মত মাটিকে চুম্বন করে নিঃসাড়
তারপর হব ইতিহাসের পাতায় অনুপস্থিত!