বনের কোণের মনের হাসি
বনফুলের হৃদয় দোলায় ভালোবাসি।
কোথা হতে বাতাস আসি
ডেকে তারে কয় -  
“চলেছি আমি অলকায়
আমার সাথে এস তুমি,  
সেথায় আছে সুধা
তোমার রূপের মেধা
উঠবে ফুঁটে আরো, অমর হয়ে রইবে চিরকাল,  
দিব্যজ্যোতি গায়ে মেখে
পাপড়ি তোমার সাজবে স্বর্ণোজ্জ্বল,
সবার চোখের জ্যোতি তুমি
নতুন নামে ডাকবে সবে, হবে ‘স্বর্গফুল’!”


“নাগো, চাইনা আমি স্বর্গে গিয়ে অমরতা,
নতুন নামে ভুলতে আমার আপন জীবন ব্যথা;
জন্ম আমার মাটির কোলে
সে কথা চাইনা আমি থাকতে ভুলে,
সারা দিনের খেলা শেষে
       কালের ক্ষণিক হেলায়
যাই যেনগো ঝরে
      সেই মাটির নরম ধূলায়  
ধূলা হয়ে যেন থাকি
মাটি মায়ের কোলটি আলো করে
ভালোবাসায় কুসুম হৃদয় ভরে।


মাটির কন্যা মাটি আমি
দেহ আমার পূণ্য ধরার ধূলায়
মাটি দিয়ে মনটি আমার গড়া - ধূলার হিরন্ময়,  
মাটি মায়ের আদর-সোহাগ, মাকে ভালোবাসি।  
স্বর্গে কোথায় মিলবে এ সব,  
স্বর্গ থেকেও সেই যে অনেক গুণে বেশী।  


দিনের শেষে সাঁঝের ছাঁয়ায় খেলে  
শূন্যহাতে পূর্ণ হৃদয় মেলে
বনের কোলে ধূলায় গড়াগড়ি, আমি মৃন্ময়ী,  
সেই তো আমার অমর জীবন, আমি মৃত্যুঞ্জয়ী!”


--
কৃতজ্ঞতা স্বীকার-  কবিতাটি আবৃতি করেছেন আমাদের আসরের স্বনামধন্য প্রিয় পীযূষ কবি সৌমেন বন্দ্যোপাধ্যায়।