মান করেছে ঈদের চাঁদ, দেখাবে না মুখ দুঃখে,  
মেঘের ছায়ায় তাই রেখেছে সারা আকাশ ঢেকে।  
এমন দিনে চাঁদ যদি না উঠল নভে,
ঈদের খুশী রইবে ওগো আঁধার ঢাকা তবে?


ও চাঁদ, এ তোমার কেমন প্রতিবাদ?
ধরা আজ ছেয়েছে অনাচারে
জুলুমবাজ মিথ্যাসাজে আছে মেতে অহংকারে
লুন্ঠিত আজ মানবতা, সত্য অপমানিত,
পরাধীন আছে যত শ্বেত পারাবত,  
ধর্ম আজ লাঞ্ছিত, চারিদিকে রক্তের সংঘাত।
মিথ্যা বসে সিংহাসনে, লুটেরা লুট করে সব গরীবের ধন,
বিভীষিকা দিকে দিকে, ভীত যত শান্তিপ্রিয় প্রাণ!


ও চাঁদ, তবু তুমি শোন আমার কথা
যতই থাকুক মনে তোমার দুঃখ-ব্যথা
নাইবা জগৎ থাকল সত্যময়,
তবু তুমি থেক নাকো দূরে -  
দূর্বল আর পীড়িতেরা, শান্তিপ্রিয় মানুষেরা
আছে চেয়ে তোমার মুখের পানে,
এস তুমি টুকরো আলোর ফালি মেলে
ঈদ-পতাকা নিয়ে হাতে
আকাশ কোনে একটু হাসির প্রাণ ঢেলে।
তোমায় দেখে মিনার থেকে যেন আজান ধ্বনী বাজে
শান্তি-সুধায় মধুর সে ডাক গোধূলীতে যেন রঙের মেলায় সাজে।


ও চাঁদ, সাঁঝের বেলা দেখে তোমায়
রাত্রি আমার কাটুক স্বপ্ন-আশায়, উঠুক দুলে হৃদয়,
আসছে ভোর মহামিলনের, উঠবে ভরে অনেক সুখে  
ঈদের খুশী পুণ্য দিনে সুখের বার্তা দিকে দিকে
ঈদ্গাহেতে যাব আমি দুঃখ গ্লানি ভুলে
সব ভেদাভেদ রেখে দূরে কোলে কোলে দুলে
ভালোবাসায় পরস্পরের উঠবে বুক ফুলে।
চেতনার আলোয় সকল উঠুক উদ্ভাসি
জাগুক আশা নতুন দিনে নতুন প্রাণে উচ্ছ্বসি।


ও চাঁদ, তোমার দর্শনে দিকে দিকে
জাগুক সাম্য-ন্যায়ের প্লাবন,  
মুনাজাতে শান্তিগীতে উঠুক মেতে সারা জাহান।  
আনো তুমি আল্লার পয়গাম - মানবতার ডাক,  
সব পাপীদের হোক চেতনা, সবে শান্তিপথে ফিরুক,  
সব শোষণের হোক অবসান ঈদের পুণ্য ঘিরে,  
সকল হোক মুক্তি-সুখের, উঠুক বিশ্ব আনন্দেতে ভরে!