একটু সুযোগ দাও!
হ‍্যাঁ, একটু সুযোগ দাও আমাকে!
তোমারা সুযোগ দাও আমাকে,
আমিও বাঁচতে চাই আমার মতো;
বেশি নয়,হ‍্যাঁ বেশি নয়।
দিনে শুধু দুই ঘন্টা,
চব্বিশ ঘন্টায় শুধু দুই ঘন্টা!


পৃথিবীতে কেউই তো অমর নয়,
সবাই চলে যায়!
কেউ বয়সে আর কেউ বা অবেলায়,
আমি কি থাকবো?
থাকবো চিরকাল?
তোমাদের জ্বালাতন করে;
না! অবশ্যই না!
যেতে হবে আমাকেও
নদীর এপার ছেড়ে ওপারেতে,
না চাওয়ার পর‌ও তোমাদের ছেড়ে।


না,আমি বলি না-
আমাকে বয়ে নিয়ে চলো
অথবা শববাহী গাড়ি ডাক -
আমার নিঃপ্রাণ দেহের জন্য।
মানে আমার শেষ যাত্রার জন‍্য!
না আমি চাই না,
আমার জন্য শামিয়ানা বাঁধো।
শ্রাদ্ধ অনুষ্ঠান করো ঘন ঘটা করে,
নিমন্ত্রণ করো বড়,
আর বড় মানুষেরে।


জীবনে যাঁদের কখনো
- নমস্কার বা সুপ্রভাত বলার
সুযোগ মেলেনি,
কেন তাঁরা দেবে সাদা ফুল,
ঐ  নিঃপ্রাণ ছবিতে।
না, প্রয়োজনতো নেই;
এই আড়ম্বরতার!


শুধু, একটু সুযোগ দাও আমায়!
আমি বাঁচতে চাই আমার মতো,
শুধু দুই ঘন্টা;
হ‍্যাঁ, চব্বিশ ঘন্টায় শুধু দুই ঘন্টা।
আমি শুধু তার সাথে থাকবো,
যাকে আমি ভালোবাসী-
হ‍্যাঁ! ভালোবাসীতো;
আমার মন প্রাণ সবকিছু দিয়ে।


না! আমি বলি;
সে কল‍্যাণী, রাখি অথবা নীলাঞ্জনাদের-
মত কোন সুন্দরী মেয়ে কিংবা নারী নয়।
সে হল কবিতা, আমার কবিতা!
না, আবারো বলি;
কবিতা আমার স্ত্রী কিংবা প্রেমিকা-
কোনটাই নয়।
সে শুধু আমার কবিতা!কবিতা,
হ‍্যাঁ,আমার কবিতা!