ওমা, এমনি করে আমায় কত করবি অপমান
অধিকারের পাওনা চেয়ে পাই যে ভিক্ষা-দান?


আমি তোরে মা ডেকেছি - সত্যি যদি তাই
অন্য ছেলের অনেক আছে, আমার কেন নাই?
সত্যি যদি আমি মা তোর আর একটি সন্তান
অধিকারের পাওনা রেখে কেন ভিক্ষা-দান?


অনেক আগেই বিদায় নিলো একটা শোষক রাজা
তার বদলে অনেক রাজাই আজকে যে দেয় সাজা।
সেই রাজারা ভাগ করে খায় মা তোর যত ধন
অভুক্তিতে নিত্য মরে আমার মতো জন।
নিত্য খাটি, তবুও কেন সবকিছুতেই টান
ওমা, এমনি করে মোদের কত করবি অপমান?


কত যোগীই শোনালো মা ভাগের মন্ত্র-তন্ত্র
ক'জন শেষে তারাই খাওয়ার করে ষড়যন্ত্র।
তোর বুকের এই অঢেল ধন মা সেই কজনেই রাখে
তোর ভুখা সন্তান যুগে যুগে শুধুই ভুখা থাকে।
কবে মা তুই ভাগ করে সব দিবি সমান-সমান
কি বিচারে রাখিস মা তুই খাদক ছেলের মান?


সবার ধনে বদ কজনের চলে রাজা-গিরি
আমরা দ্বারে ভিক্ষা চেয়ে নিত্য ঘুরি ফিরি।
আজকে তবে বলছি মাগো, রাখিস কথা মনে
কালকে নেব ভাগ করে সব যা অধিকার ধনে।
কাঁদিস না মা তখন ক'জন রাজার গেলে প্রাণ
তুই কি শুধু দেখবিই মাগো মোদের অপমান?