মেঘ যদি আকাশের বুক ছুঁতে পারতো
বারি হয়ে এ মাটির বুকে সে কি ঝরতো?
ঝড় যা যা করে যায় যদি সে তা জানতো
সে কি তার ঝড়ো-বেগে পথচলা মানতো?


হে পৃথিবী!
কাঁদালাম তোমাকে সারাটা জীবন
নিজ বেগে পথ চলে ঝড়ের মতন।
কত গাছ ডালপালা ভেঙে গেছি পথে
সব কি তার দেখা যায় শেষপ্রান্ত হতে?
এই প্রাণ রক্ষণে কত প্রাণ করেছি হরণ
অথচ, কী বিষাদে ভাবি শুধু নিজের মরণ!


তবু ভালো, ঝড় সয়ে মেঘ করে রেখেছো
আকাশকে ছুঁতে গেলে মাটি থেকে ডেকেছো।
যে জীবন হাসায়নি, কাঁদিয়েছে ঢের
সে জীবন শেষে কেউ না কাঁদুক ফের।
যে মাটি শুষে শুষে বানিয়েছি মরু
সে-মাটিই জন্মে যদি ক্ষুদ্র এক তরু
বিন্দুবৎ বারি সম মোরে ঢেলো মূলে
যে হাসাবে এ ধরণী সুন্দর ফুলে।