২৭. মন-মেদুুরে গাথা ২৮. অদ্ভুত কবি এক আলোর আড়ালে (মুনওয়ার শাকিল)
২৯. ছড়া (এলেবেলে ভাবনা) ৩০. বিপন্ন মানবতার ফরিয়াদ


কবিতার নাম - মন-মেদুরে গাথা
কবির নাম - অনিরুদ্ধ বুলবুল


http://www.bangla-kobita.com/oniruddho/post20170408010115/


আলোচনা -


প্রকৃতি তার রঙ রূপ, শব্দের  ডালি নিয়ে সর্বদা হাতছানি দেয় l মনের দোষ কি ? সে ছুুটে যায় ! জীবনভর সুখ-দুখের কত অনুভব, তার স্মৃতি l কত মানুষের সাথে মিলন, আবার বিচ্ছেদ l মন বিষাদগ্রস্ত l বাইরের প্রকৃতির সঙ্গে আমাদের অন্তঃপ্রকৃতির আত্তীকরণ প্রক্রিয়া তার মাধ্যম ঐ মন l চঞ্চল এই মনের ছবি এঁকেছেন কবি, তার উতলা ভাব, সংবেদনশীল হৃদয়, উদাসী স্বভাব - বিয়োগ ব্যথায় কাতর l প্রকৃতির প্রতিটি ইশারাকে আমাদের জ্ঞানের পরিসরে নিয়ে আসে  আমাদের মন l সেই মন কবিকে কবিতা ভাবনায় চালিত করে l
সুন্দর একটি কবিতা উপহার দেবার জন্য কবিকে ধন্যবাদ l


কবিতার নাম - অদ্ভুত কবি এক আলোর আড়ালে (মুনওয়ার শাকিল)
কবির নাম - অনিরুদ্ধ বুলবুল


http://www.bangla-kobita.com/oniruddho/post20170319103208/


আলোচনা -
এটি কবি মুনওয়ার শাকিলকে নিয়ে একটি গদ্য রচনা l আলোচনা বিভাগে প্রকাশিত l অনুপ্রেরণামূলক লেখা সকল কবির জন্য l তাই কবিতার সমান মর্যাদায় এটিকে নির্বাচিত করেছি l প্রকাশের তারিখ - ২০.০৩.২০১৭


কবিতার আগুন যে হৃদয়ে জ্বলে, শত তথাকথিত অসুবিধা বা সংকটের মধ্যেও তা প্রকটিত হয় - অনেক অনেক উদাহরণের মধ্যে আমাদের আপন যুগে নবতম সংযোজন মুনওয়ার শাকিল l তিনি উদাহরণ ও প্রেরণা কবিতাপ্রেমী ও সাহিত্যসেবী সকল মানুষের কাছে l সাহিত্য, সঙ্গীত, শিল্পকলা তার প্রকৃত সাধকদের কখনও নিরাশ করে না l যে কোনো সংস্কৃতি শিল্পের দুটি ধারা থাকে l একটি ধারা তাদের নিয়ে যারা রীতিমত পড়াশোনা করে, সংশ্লিষ্ট শিল্পে দখল আছে এমন প্রামাণ্য অ্যাকাডেমিক সার্টিফিকেট নিয়ে ঐ শিল্প চর্চা করেন l দ্বিতীয় ধারাটি তাদের নিয়ে যারা সহজাত ক্ষমতায়, শুধু নিজের প্রতিভা, সাধনা ও শিল্প শাখাটির প্রতি ভালবাসা থেকে কোনোরকম প্রথাগত পড়াশোনা ছাড়াই কালজয়ী সব শিল্পকর্ম সৃষ্টি করে গেছেন l সাহিত্য, সঙ্গীত, শিল্পকলা - সব ক্ষেত্রেই এরকম ভুরি ভুড়ি উদাহরণ আছে l ছন্দের পাঠ নেন নি কোনদিন, কিন্তু অদ্ভুত ছন্দময় ছড়া-কবিতা লিখেছেন l গানের তালিম নেন নি l অথচ সুরে. তালে গান গেয়ে মানুষের মন জয় করেছেন l ব্যতিক্রমটাকেই এরা নিয়মে পরিণত করেছেন l মুনওয়ার শাকিল এই ধারার উত্তরাধিকারী l
আসরের সকল কবিবন্ধুদের সামনে বিষয়টি এনে কবি অনিরুদ্ধ বুলবুল মহাশয় তাঁর সঙ্গে আমাদের সকলকে শাকিল সাহেবকে শ্রদ্ধা জানানোর সুযোগ করে দিয়েছেন, তার জন্য তাঁকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই l


ছড়ার নাম - ছড়া (এলেবেলে ভাবনা)
কবির নাম - মোজাহারুল ইসলাম চপল ( প্রসূন কবি)


http://www.bangla-kobita.com/2202200/post20170405123350/


আলোচনা -


ছড়া (এলেবেলে ভাবনা) পড়লাম l কবি "বাংলা কবিতা"য় একশত এর ও বেশি কবিতা লিখেছেন l আলোচনা মূলক লেখাও লিখেছেন কিছু l ছড়াটি পড়লাম একবার, দুবার, আর একবার l ছড়ার ক্ষেত্রে অর্থ প্রকাশের গুরুত্ব তেমন নেই l সুতরাং ছড়াটিতে কবি কি বলতে চেয়েছেন, সেটা বুঝতে ছড়াটা তিনবার পড়ি নি l বারবার ছড়াটি এইজন্য পড়ছিলাম, যেহেতু প্রতিবারই ছড়াটি পাঠ করতে গিয়ে মনে হচ্ছিল যেন ছন্দপতন হচ্ছে এবং বুঝতে চাইছিলাম ছন্দটা কোথায় কাটছে এবং কিভাবে ছন্দটা ঠিক করা যাবে l সেই আলোচনাতেই যাচ্ছি l
ছড়াটি যে ঢঙ-এ লেখা হয়েছে, সেখানে স্বরবৃত্ত ছন্দ ব্যবহার হয় l

স্বরবৃত্ত ছন্দের বৈশিষ্ট্য হলো, এখানে অন্ত্যমিল থাকে এবং পাঠের সময় দ্রুততালে তা পড়তে হয় l
এমনিতে ছড়াটির গঠন ভালো, বিষয়টিও সুন্দর l শুধু কিছু কিছু পঙক্তির কোন কোন পর্বে ছন্দ কেটে যাচ্ছে বলে ছড়াটি পাঠ করতে অসুবিধা হচ্ছে, আবৃত্তিযোগ্য হচ্ছে না l
আমি ছড়াটির মাত্রা ঠিক করলাম l  


"বৃষ্টি দিনে ভাবনা গুলি  
উড়ছে দেখ ডানা মেলে
কি করতে কি করে ফেলি
আজগুবিটা, আসল ফেলে l


ঢাকটা ডাকে গুড়ুম গুড়ুম
বইছে ওই বাতাস ভারী
অভিমানে সূর্য লুকায়
তোমার সাথে করি আড়ি l


দেখ ওগো পাখি গুলো
আসছে উড়ে তাদের নীড়ে
ডানা ছাড়া কেমন করে
আসব আমি ঘরে ফিরে l


প্রতি পঙক্তিতে দুই পর্ব l প্রতি পর্বে চার মাত্রা, লক্ষ্য করলে বোঝা যাবে l
বৃষ্-টি- দি-নে / ভাব্-না -গু-লি
উড়্-ছে -দে-খ / ডা-না - মে-লে
কি-কর্-তে-কি / ক-রে - ফে-লি
আজ্-গু -বি-টা / আ-সল্ - ফে-লে


ছড়ার পঙক্তিগুলির কিছু পর্বে চার মাত্রা হচ্ছিল না l তাই ছন্দ কেটে যাচ্ছিল l এখন প্রতি পর্বে চার মাত্রা হবার পর ছড়াটি আবৃত্তি করলে পার্থক্য বুঝতে পারা যাবে l আমি যে শব্দ বা শব্দাংশ যোগ করেছি, সেটা শুধু বোঝার সুবিধার জন্য l কবি  নিজের মতো করে সেগুলিকে ঠিক করে নিতে পারবেন l


কবিতার নাম - বিপন্ন মানবতার ফরিয়াদ
কবির নাম - মোঃ ফিরোজ হোসেন


http://www.bangla-kobita.com/shamimferoj/post20170401010918/


আলোচনা -


মানবকল্যাণে কবির প্রার্থনা আন্তরিক l কবিতার ভাষা প্রাঞ্জল l চতুর্দিকে হতাশার অন্ধকারের মধ্যে আশার আভা দেখি কবিতার প্রথম ছত্রে, দিনের আলো ঘুমিয়ে পড়েছে, নিভে যায় নি l কবিদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় দিনের আলো-কে, সুশাসনকে, শুভবোধকে জাগিয়ে তুলতে হবে l কবিকে ধন্যবাদ মানবতার ধ্বনিকে কলমে ধরবার জন্য l