কালীর কালি রঙটা তাহার মাথায় খোঁপা চুল
তাহার উপর নাকের বাহার চরিত্র নির্ভুল l
পরব পূজা যখন আসে এ গ্রাম সে গ্রাম মাঝে
সব গ্রামেতে গতি তাহার সকাল বিকাল সাঁঝে l
রং বেরঙের সাজটা সে নেয় পরব খানি দেখে
আপন রঙটা গোপন করে কতো সে রঙ মেখে l
হিঁদূর পরব মুসলমানের নাইকো বাছবিচার
খৃষ্টানদের হোক না কেন সাজের কী বাহার !


যখন গেলো মা -টা মরে বাবা করল বিয়ে
ঘাড়টা ধরে রাস্তা দেখায় নববধূ মায়ে l
ঘুরলো কতো নগর শহর বাল্যকালের থেকে
ছোট বড়ো কাজের ফাঁকে যাত্রাদলে ঢোকে l
খাটা-খাটুনির কাজটা সেথা তবু প্রাণের টানে
অভিনয়টা মন কাড়ে তার আর যাত্রা গানে l
কস্টিউমটা যাচাই করে নিজের ওপর কালে
চরিত্রদের কথা বলায় নিজের সুর ও তালে l
বছর বছর নতুন পালা ধর্ম সমাজ কথায়
হাসি কান্নার রোল উঠে যায় আনন্দ ও ব্যথায় l


বিনোদনটা এক থাকে না বদল যুগে যুগে
সহজ হলো আনন্দটা বিজ্ঞান হুজুগে l
চিপস-এ আসে, ডেটা কার্ড-এ, মজা বস্তা ভর
লোকশিল্প শিল্পী যত ভাঙে তাদের গড় l
যাত্রাদলটা উঠেই গেলো যে যার নিজের ঘর
ঘরহারা সেই কালীর কালি কি করে তারপর ?


সেই থেকে সে সঙ নিয়েছে সব পরব মাঝে
খোঁপা চুল আর বসন বাহার সকাল দুপুর সাঁঝে l
সাজের সাথে কথায় ভাসে সব মতেরই কবি
একাই সে তার পালা রচে সুর সঙ্গীত সব-ই l
কালীর কালি রঙটা তাহার মাথায় খোঁপা চুল
পরব পূজায় সঙ দেখে সব, কেউ করে না ভূল l