১০২.
কবিতা দুরকমের হতে পারে l Optimistic ও Pessimistic, আশাবাদী ও হতাশাবাদী l


রচনাটিতে একই সঙ্গে আশা ও হতাশার প্রকাশ দেখি l দুইয়ের সহাবস্থান এক কবিতায় l

ঝড় থামবে, পাখি নীড়ে ফিরবে l
আবার, প্রভাত নিশি জুড়ে ছিন্ন সাধের বাসা, শূন্যতা বুক চিঁড়ে, প্রভাত নিশি ঘুরে প্রতিটি ক্ষণ জুড়ে মিছে আশায় বাঁচা, কষ্টে জ্বলে পুড়ে।


একবার, জানি ঝড় থেমে যাবে, ফের স্বপ্নের পিছু ধাওয়া, কল্পনার রং তুলি l
আবার, মিথ্যে কতক বুলি, সত্যের অভিনয়, জীবন তাসের ঘর, বিনে পবনে নড়বড়, ভাঙার প্রহর গুনে l


শেষ পর্যন্ত কবিতায় কি পেলাম ? আশার বাণী ? হতাশার হাহুতাশ ? নাকি জীবন সংগ্রামের কঠোর বাস্তবতা ?


কবি নিজেই জবাব দিলেন l
"বুঝি হিসেবে গড়বড়।"


বর্তমান দিনে মানুষের জীবনযাপন বড়ো জটিল l বহুবিচিত্র বৈপরীত্যপূর্ণ কার্যকলাপের সমষ্টি l কখনও সে নীতি ও আদর্শের কথা বলে l কখনও অস্তিত্বরক্ষার তাগিদে নীতির সঙ্গে আপোষ করে l শিশু কিশোরকাল থেকে তার মনে অনেক স্বপ্ন ও আশা থাকে l কিন্তু যখন সে বড়ো হয়, বাস্তবতার  সংঘাতে তার সব স্বপ্ন, আশা ভেঙ্গে চুরমার হতে দেখে সে l তারপরও তাকে বেঁচে থাকার প্রয়াস করতে হয় l শুধু বেঁচে থাকবার তাগিদেই তাকে অনেক কিছুর সঙ্গে আপোষ করে চলতে হয় l মনের মধ্যে অনেক ঝড় ওঠে l নিজের মনের সঙ্গে লড়াই করে, আশা নিরাশায় দুলতে দুলতে, চোখের সামনে স্বপ্ন ও আদর্শের জগতকে ভেঙ্গে পড়তে দেখেও মানুষ শুধু বেঁচে থাকার তাগিদে দিনপাত করে চলে l


কবিকে শুভেচ্ছা সংশয়পূর্ণ, অনিশ্চয়তাপূর্ণ আশা নিরাশার দোলায় দোদুল্যমান আধুনিক জীবনযাপনকে কবিতায় তুলে আনার জন্য l