৬৩. কবিতার নাম : মনের গভীরে মন
  কবির নাম : সোমালীনিরঝরা(মৃণালিনী)


আলোচনা -
মন আছে যার সেই তো মানুষ, হৃদয়মাঝে সেই মনকেই তো লুকিয়ে রাখি l সুখের মনের খুশির সীমা থাকে না l সে নীল দিগন্তে ডানা মেলে l আবার দুঃখের মনের সমব্যাথি হয় l আনন্দে কাছে টেনে নেয় l মনের চাহিদা বেশী নয় l সে চায় শুধু ভালোবাসা আর প্রেম l তা না পেলে মন দুঃখী হয় l সে তখন শুধু কাঁদে l নিজে কাঁদে l অপরকে কাঁদায় l
মনের চাহিদা পূরণ না হলে তখন সবকিছু শূন্য মনে হয় l নিজেকে রিক্ত মনে হয় l ক্লান্ত মনে হয় l অথচ এই মনকে বাদ দিয়ে তো চলা যায় না l মন যেরকমই হোক, অবুঝ হোক, সমঝদার হোক, তাকে মানিয়ে নিতে হয় l জীবনে সুন্দরভাবে বাঁচার এটি একটি পূর্বশর্ত l মন ভালো তো সব ভালো l আর যদি মন যায় বিগড়ে, তখন অনেক অনেক আয়োজনও কম পড়ে l
তাই জীবনে চলার পথে একে অন্যের মনকে সময় দেয়া দরকার l মনের চাহিদাকে উপেক্ষা করা যায় না l খুশি মন জীবনের অনেক জটিলতাকে সহজ করে দেয় l আর মন দুঃখী হয়ে পড়লে জীবনটা অর্থহীন, শূন্য মনে হয় l


আমার মনে হলো কবিতাটির পঙ্ক্তিগুলি এভাবে সাজানো যায় কি না l দু একটি শব্দকেও তার জন্য একটু রদবদল করতে হল l এভাবে -


মনের গভীরে মন / সোমালীনিরঝরা(মৃণালিনী)


        শূন্য তুমি রিক্ত তুমি ক্লান্ত তুমি আজ
তবু    তোমায় নিয়েই চলতে হবে
        এটাই আসল কাজ l


         অবুঝ মন নিটোল মন, মন কতরকম
শুধু     সকল মনই চিন্তা করে
         ভাবায় যখন তখন.....


          মন খোঁজে ভালোবাসা
আর     মন খোঁজে প্রেম,  
          দুঃখে থাকে থরে থরে আশা l
          


          সুখের মন ডানা মেলে নীলদিগন্তে
ওই      দুঃখটাকে দেয় যে মুছে
          নিজের মনের আনন্দে
                  
           মন আছে যার সে নয় তো বন্য প্রাণী
সেই      তো মানুষ, মন তার
           লুকিয়ে আছে হৃদয় মাঝে জানি..!!


সুন্দর কবিতাটির জন্য কবি মহাশয়াকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন l