৪৫.
আমরা empowerment of women এর কথা বলি l Empowered woman এর প্রকৃষ্ট উদাহরণ হলেন দশভুজা দুর্গা l দশ হাতে অত্যাচারী মহিষাসুরকে বধ করে তিনি স্বর্গ, মর্ত্য, পাতাল - এই তিন লোকে শান্তি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন l
নারী জাতি দশভুজা দুর্গতিনাশীনির জীবন্ত প্রতিমূর্তি l জাগতিক জীবনে দু হাতে তাঁরা দশ হাতের কাজ করেন l জীবনের বিভিন্ন পর্যায়ে বিভিন্ন ভূমিকা পালন করে এই ধরিত্রীর বুকে বিচিত্র জীবন যাপনে অনন্য ভূমিকা তাঁদের l ছোটবেলায় কন্যারূপে বাড়ীর মধ্যে এক হাসি-উজ্জ্বল পরিবেশ রচনা করেন, যৌবন বয়সে নতুন সংসারে পদার্পণ করে একজনের যোগ্য জীবনসঙ্গী হয়ে ওঠেন, তারপর পাই তাঁর মাতৃরূপ l এই তিন রূপে ধরার মাঝে তাঁর উপস্থিতির জন্যই পৃথিবীটা এত সুন্দর, তাই পৃথিবী বাসযোগ্য l ধরিত্রী নিজেও নারীর প্রতিমূর্তি l  সর্বংসহা l
নারী বিধাতার এক অনন্য সৃষ্টি l এক দেহে কত বিচিত্র পরস্পর বিরোধী গুণাবলীর সমবেশ l স্থান, কাল পাত্র অনুযায়ী নারী এক এক রূপে হন প্রতিভাত l কখনও প্রেয়সীর রূপে প্রিয়র মনোরঞ্জন করেন l কখনও তাঁর রুদ্ররূপ l রণচণ্ডী রূপ নিয়ে শত্রু বিনাশ করেন, জগতকে সুখ আর শান্তির সন্ধান দেন l আর মাতৃরূপ তাঁর সহজাত রূপ l স্নেহের প্রতিমূর্তি হয়ে সন্তানদের নিরাপত্তার সুশীতল ছায়া প্রদান করেন l সম্পদে বিপদে নারী হন পুরুষের যথার্থ সঙ্গী l হাসিমুখে অভাব দুর্দিন অতিবাহিত করেন l দুঃখ তাঁর কাছে পরাজিত হয় l ধরিত্রীমাতার মতো নারীও সর্বংসহা l কোন বিরুদ্ধ পরিস্থিতি তাদের বিচলিত করে না l সব অবস্থাকে মানিয়ে নেবার মতো অমিত শক্তিধারিণী এই নারী জাতি l
নারী একই সঙ্গে আকর্ষণ ও বিকর্ষণ কারী l এক পলে আজন্ম লালিত স্নেহ ভালোবাসার বন্ধনে আবদ্ধ পিতৃগৃহ ত্যাগ করেন l অসীম মানসিক দৃঢ়তায় আপনকে পর করেন l একই সঙ্গে পরকে করেন আপন l নতুন ঘরে, একেবারে নতুন পরিবেশে সকলকে মানিয়ে নিয়ে জীবনকে এক সার্থক পরিভাষা দান করেন l
নারী নিজের জন্য কিছুই রাখেন না l ত্যাগ ভালবাসার প্রতিমূর্তি l সব তাঁর স্বামী, পুত্র, কন্যার জন্য সংরক্ষিত l
এই পৃথিবীতে নারী প্রকৃত অর্থেই দশভুজা হয়ে জীবন যাপন করেন l
সুন্দর ভাব l সুন্দর প্রকাশ l শ্রুতিমধুর শব্দ, বাক্যের সমাবেশ আছে কবিতাটিতে l
কবিকে অভিনন্দন l