সেই মানুষ আমি খুঁজেছি অনেক,
অজান্তে জীবনের এই সাজানো মেলার ভীড়ে।
অনেক নিবিড় ব্যাথা নিয়ে প্রাণে, মননে আরো অনেক!
হন্যে হয়ে ফিরে ফিরে দিনের শেষের ক্লান্ত মধ্যবিত্ত সূর্যের মত, থেমে।
নদী কে তিরস্কার করে বলেছি শান্ত হও এবার,
মোহনায় যাওয়ার আগেই  তুমি হয়ে যেও নাকো দিনের কলরব!


গড়ের মাঠের ট্রামে চেপেও বলতে পারিনি কলকাতা কত সুন্দর!
কেবল তোমায় খুঁজেছি ক্ষত বেদনার মত রোজ অকারনে।
আউট্রাম ঘাটের অন্ধকারের চেয়েও টেনেছে বেশী জাহাজের কেবিনের জ্বলেওঠা আলো।
খালাসির প্রাণেই দেখেছি প্রেমের প্রতিশ্রুতি।


না কোথাও তুমি নেই আজ কোথাও না।
এই শহর জুড়ে পড়ে আছে শুধুই শরীর, আর শরীরের হুল্লোড়!
তোমার চোখের মোহিনী কাজল পন্য হয়ে গেছে কবে!
অতি যত্নের মোড়কে ন্যাচারাল হিউম্যান চারকোল হয়ে।
নিস্তব্ধতা নিয়ে তাই রাত্রির সাদা কাকেরা ডালে ডালে বসে আছে অপেক্ষায়:
আজ ভোরের কোরাস গাইবে বলে।